রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২

‘১৩ রান না দিয়ে পাকিস্তানের জয় কেড়ে নেওয়া হয়েছে’

প্রকাশিত: সোমবার, এপ্রিল ৫, ২০২১




রোববার জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্সে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে পাকিস্তানের বাঁহাতি ওপেনার ফখর জামান একাই লড়লেন। শেষ ওভারেও জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে রেখেছিলেন। 

কারণ শেষ ওভারে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ৩১ রান। স্ট্রাইকে ছিলেন ১০ ছক্কা ও ১৮ বাউন্ডারি হাঁকানো ফখর জামান। শেষ ওভারে তার থেকে অতিমানবীয় কিছু আশা করতেই পারেন পাকসমর্থকরা।

কিন্তু লুঙ্গি এনগিদির প্রথম বলেও দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে প্রোটিয়া উইকেটরক্ষক ডি ককের চাতুরতায় রানআউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ফখর।

তার ১৯৩ রানের ইনিংসের সমাপ্তির সঙ্গে পাকিস্তানের জয়ের আশার আলোও নিভে যায়। ১৭ রানে হেরে যায় পাকিস্তান।

তবে পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা শোয়েব আখতারের অভিযোগ, রোববারের ম্যাচে পাকিস্তানই জিতত। ১৩ রান না দিয়ে পাকিস্তানের জয় কেড়ে নেওয়া হয়েছে। 

পাকিস্তানের স্কোরবোর্ডে ১৩ রান যুক্ত করা হয়নি বলে দাবি রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেসের।

এ দাবির পক্ষে যুক্তিও দেখিয়েছেন শোয়েব।

ম্যাচশেষে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও আপলোড করেন শোয়েব আখতার।

সেখানে তিনি বলেন, ‘ম্যাচ তো আপনারা দেখেই নিয়েছেন। আমার যেমন হতাশা কাজ করছে, আপনারাও নিশ্চয়ই হতাশ। ফখর জামানের ডাবল সেঞ্চুরি হলো না। আমি এটিকে প্রতারণা বলব না। তবে এটিকে আমি ভালো ক্রিকেট স্পিরিট বলতেও রাজি নই। যেভাবে ডি কক আউটটা করল তা হতাশাজনক।’

ফখরকে রানআউট করার ব্যাপারে ডি ককের চাতুরতার প্রসঙ্গটি এনে পাক স্পিডস্টার বলেন, ‘৪১.৫-এর অনুচ্ছেদে বলা আছে— আপনি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে কাউকে ভুল পথে পরিচালিত করেন, তা হলে ৫ রান পেনাল্টি দেওয়া হবে, সেই বলটি আবার করা হবে এবং ওই বলে নেওয়া সব রানও যোগ হবে। তার মানে দাঁড়ায়— দৌড়ে নেওয়া ২ রান, নো বলে ১ রান ও পেনাল্টি থেকে ৫ রান- সব মিলিয়ে ৮ রান। এসব তো যোগ হলো। পাশাপাশি স্পিরিট অব দ্য গেমও নষ্ট হয়েছে।’ 

আরো পড়ুন