শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২

হেফাজত নেতা মামুনুল হক-শিশু বক্তা মাদানী কারাগারে

প্রকাশিত: সোমবার, মে ১০, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নাশকার অভিযোগের মামলায় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মামুনুল হক ও মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিভিন্ন মেয়াদের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (১০ মে) দুপুরে শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিভানা খায়ের জেসির এ আদেশ দেন।

এদিন হেফাজত নেতা মামুনুল হককের ৫ দিন ও মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীর সাত দিনের রিমান্ড শেষে তাদের আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তারা। মামলাগুলোর তদন্ত শেষে না পর্যন্ত তাদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন এ তদন্ত কর্মকর্তারা। শুনানি শেষে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর রাখার নির্দেশ দেন।

গত ৪ মে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মামুনুল হককের বিরুদ্ধে নাশকার অভিযোগের পৃথক দুই মামলায় ৫ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছিলেন আদালত। গত ২২ এপ্রিল রজধানীর মতিঝিল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীর সাত দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন ভার্চুয়াল আদালত।

মামুনুল হককে গত ১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ২০২০ সালে মোহাম্মাদপুরে একটি ভাঙচুরের মামলায় মামুনুলকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও কয়েকটি মামলা আছে মতিঝিল, পল্টন, নারায়ণগঞ্জে। পরে সেগুলো সমন্বয় করা হবে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফর সাম্প্রতিক সহিংসতা ও রিসোর্টকাণ্ডে রাজধানীর পল্টন থানা ও নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দুটি মামলা হয়েছে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে। এছাড়া, ২০১৩ সালের শাপলা চত্বর তাণ্ডবের ঘটনাতেও তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে।

গত ২১ এপ্রিল মওলানা মাদানীর মতিঝিল থানার এক মামলায় তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ইউটিউব ও বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী দেশ ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক বক্তব্য ছড়াচ্ছেন। তার এসব বক্তব্য দেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। বিভ্রান্ত হয়ে তারা দেশের সম্পত্তির ক্ষতি করছে।

গত ৭ এপ্রিল ভোরে নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দার নিজ বাড়ি থেকে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান-র‌্যাব। এরপর গত ১৬ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীকে দুই দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

আরো পড়ুন