শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

হিউম্যান-টু-হিউম্যান টাচ যত কমবে, দুর্নীতি তত কমে আসবে: ভূমিমন্ত্রী

প্রকাশিত: সোমবার, মে ২৪, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা :

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেছেন, অনলাইনে ভূমি উন্নয়ন কর, মিউটেশন ফি, খতিয়ান ফি সহ যাবতীয় ফি পরিশোধের ব্যবস্থা স্থাপনের উদ্দেশ্য হলো জনগণের দোরগোড়ায় ভূমিসেবা পৌঁছে দেওয়া। হিউম্যান-টু-হিউম্যান টাচ যত কমবে, দুর্নীতি তত কমে আসবে।

সোমবার ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভূমিসংক্রান্ত যাবতীয় ফি অনলাইনে পরিশোধের সুবিধা সম্বলিত সিস্টেম (কাঠামো) স্থাপনের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়-এর সাথে পেমেন্ট গেটওয়ে চ্যানেল সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান উপায়, নগদ ও বিকাশ এবং ব্যাংকিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি)-এর মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয় বাস্তব’ উল্লেখ করে ভূমিমন্ত্রী এসময় আরও বলেন, আমরা ভূমি সেক্টরে এমনভাবে ‘সিস্টেমের’ টেকসই পরিবর্তন করছি যেন দুর্নীতি করার সুযোগই না থাকে।

তিনি এ সময় দক্ষ, স্বচ্ছ ও জনবান্ধব ভূমি ব্যবস্থাপনা স্থাপনের লক্ষ্যে কাজ করে যাওয়া দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করেন।

সাইফুজ্জামান চৌধুরী ভূমিসেবা উন্নয়নে গণমাধ্যমের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে আরও বলেন, গণমাধ্যম একইসাথে সরকারের উন্নয়ন সহযোগী ও ‘ওয়াচডগ’। গণমাধ্যমে দেশের, বিশেষত মাঠ পর্যায়ের ভূমি ব্যবস্থাপনার প্রকৃতচিত্র প্রতিফলিত হলে তা নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহযোগিতা করে বলে ভূমিমন্ত্রী মত প্রকাশ করেন।

এসময় খতিয়ান প্রদানের জন্য সারা দেশে বিভিন্ন শপিং মল, স্টেশন সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কিয়স্ক বুথ স্থাপনের পরিকল্পনার কথা ভূমিমন্ত্রী জানান।

এ সময় ভূমি সচিব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, পিএএ ও ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা কামাল উপস্থিত ছিলেন। ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ভূমি সংস্কার বোর্ড এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ কুমার দাস এবং ইউসিবি-এর অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ কাদরি, উপায়-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইদুল এইচ খন্দকার, নগদ-এর প্রধান পরিচলন কর্মকর্তা আশিস চক্রবর্তী ও বিকাশ-এর মহাব্যবস্থাপক এস এম বেলাল আহমেদ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে ভূমি সচিব জানান অনলাইনে ভূমি উন্নয়ন কর ও ফি প্রদানের সুবিধা পাওয়ার জন্য ভূমি মালিকদের বাধ্যতামূলক রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এ জন্য একজন নাগরিককে প্রথমেই এলডি ট্যাক্স সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। অনলাইন পোর্টাল land.gov.bd অথবা www.ldtax.gov.bd-এ ঢুকে এনআইডি ও মোবাইল ফোন নম্বর এবং জন্মতারিখ এন্ট্রি করার মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। এছাড়াও, কল সেন্টার নম্বর ৩৩৩ বা ১৬১২২- এ ফোন করে এনআইডি নম্বর, জন্মতারিখ এবং জমির তথ্য প্রদান করার করে কিংবা এনআইডি ব্যবহার করে যে কোন ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার-এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন আজকের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মধ্যে দিতে প্রায় ৫ কোটি পরিবার সুবিধা পাবেন। সহযোগী আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ তাঁদের বক্তব্যে ডিজিটাল ভূমি ব্যবস্থাপনা বিনির্মাণে ভূমি মন্ত্রণালয়ের তৎপরতার ভূয়সী প্রশংসা করেন। সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভূমি মন্ত্রণালয়, ইউসিবি, উপায়, নগদ ও বিকাশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।


বাংলাদেশ সময় ০৮.৪৮ পিএম, ২৪ মে ২০২১ ইংরেজি, ইআ/ইএ/ নগর নিউজ

আরো পড়ুন