শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

সীমান্ত বন্ধ নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের যে সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত: রবিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২১

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে সোমবার (২৬ এপ্রিল) থেকে ভারতের সঙ্গে সব সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। এ সিদ্ধান্ত অন্তত আগামী ১৪ দিন বলবৎ থাকবে।

রোববার (২৫ এপ্রিল) পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে এ সংক্রান্ত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে এসব জানানো হয়।

সিদ্ধান্তগুলো হলো
১. আগামী ২৬ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ৯ মে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সকল স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হবে।

২. তবে যারা ভারতে চিকিৎসার জন্য গিয়েছেন তাদের ভারতীয় ভিসার মেয়াদ যদি দুই সপ্তাহ বা তার কম থাকে, তাহলে তারা নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশ দূতাবাস, কলকাতা বা আগরতলা থেকে প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র গ্রহণ করে ৭২ ঘণ্টা মেয়াদি কোভিড নেগেটিভ আরটি-পিসিআর সনদ পেশ করে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন। বাংলাদেশে প্রবেশের পর তাদের অবশ্যই প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেনটাইনে থাকতে হবে। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জেলা প্রশাসনের জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করা হবে। জেলা প্রশাসনকে কোয়ারেনটাইন বিষয়ে সহায়তা করার জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ অথবা এএফডি-কে যথাযথভাবে অনুরোধ জানাবে।

৩. স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী চলাচল সাময়িকভাবে স্থগিত করার বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে বাংলাদেশ দূতাবাস নয়া দিল্লি, কলকাতা ও আগরতলা থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

৪. বেনাপোল, আখাউড়া ও বুড়িমারী স্থলবন্দর ব্যতীত বাকি সকল স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী চলাচল সম্পূর্ণভাবে স্থগিত থাকবে।

৫. পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে আমদানি ট্রাকসমূহকে বাংলাদেশে প্রবেশের পূর্বে স্থলবন্দরে নির্দিষ্ট জায়গায় যথাযথভাবে স্প্রে করে জীবাণুমুক্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় হতে নির্দেশনা জারি করা হবে। এছাড়াও, ট্রাকের চালক ও হেলপারকে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

৬. রেলযোগে পণ্য পরিবহনের জন্য আমদানি ও রফতানিকারকদের বিশেষভাবে উৎসাহিত করার বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

৭. উপরোক্ত সিদ্ধান্তসমূহ দুই সপ্তাহ বলবৎ থাকবে। তবে দুই সপ্তাহ অতিবাহিত হওয়ার পূর্বেই কোভিড পরিস্থিতির আলোকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্তসমূহ পুনরায় পর্যালোচনা করবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে বিদ্যমান কোভিড-১৯ অবস্থা বিবেচনায় বাংলাদেশে এর বিস্তার রোধে সম্ভাব্য উপায়সমূহ আলোচনা করার জন্য পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিবসহ মন্ত্রিপরষদ বিভাগ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের প্রতিনিধি যুক্ত ছিলেন। এছাড়া ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব), উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ এবং কলকাতা ও আগরতলাস্থ মিশনের প্রধানদ্বয় যুক্ত ছিলেন।

আরো পড়ুন