বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে : মেয়র

প্রকাশিত: বুধবার, নভেম্বর ২, ২০২২

নগর প্রতিবেদক::

স্বাস্থ্য সম্মত ও টেকসই স্যানিটেশন জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার পূর্বশর্ত। সুন্দর জীবন ও শারীরিক সুস্থতার জন্য প্রতিটি কাজের আগে ও পরে সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুুরী।

আজ বুধবার (২ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ^ হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন।

তিনি বলেন, বিভিন্ন সংক্রামন জাতীয় রোগ থেকে সুরক্ষা ও এর বিস্তার রোধে সবচেয়ে সাশ্রয়ী ও কার্যকর উপযোগগুলোর একটি নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধোয়ে এবং নিরাপদ স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়গুলো মেনে চলা, ভালো করে সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধোয়ার মাধ্যমে সংক্রামক রোগ বহুলাংশে কমানো সম্ভব।

মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী কার্যক্রমের ফলে জনগণের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি সংক্রমিত রোগের প্রাদুর্ভাব হ্রাস পেয়েছে। স্যানিটেশন কর্মসূচিতে সহস্রব্দ উন্নয়ণ লক্ষ্যমাত্র অর্জনে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে, যা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে বিশেষ করে সবার জন্য ন্যায্যতার ভিত্তিতে নিরাপদ পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিতের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। চসিকের পরিচ্ছন্ন কর্মীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করতে আধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে পিট ল্যাট্রিন বা সেপটিক ট্যাংক হতে পয়ঃবর্জ্য সংগ্রহ করে পয়ঃবর্জ্য শোধনাগারে পরিশোধন করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, এছাড়াও সবার জন্য স্বাস্থ্য সম্মত স্যানিটেশন নিশ্চিতে চসিক ও বেসরকারি সংস্থা সমূহের সহযোগিতায় নগরীতে পাবলিকও কমিউনিটি টয়লেট স্থাপনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে। এবং প্রন্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে ইউএনডিপির মাধ্যমে উল্লেখযোগ্য অনেক কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আশরাফ উদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রকৌশলী মোহাম্মদ গোলাম মোর্শেদের সঞ্চালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মুমিনর রহমান, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী ফিরোজ আহমদ চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন-প্রকৌশলী পলাশ চন্দ্রদাশ, আরেফাতুন জান্নাত, হাবিবুর রহমান, ফারহানা ইদ্রিস, মো. সরোয়ার আলম, খোরশেদ আলম। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রকৌশলী জহির উদ্দীন দেওয়ান।

আরো পড়ুন