বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২

মনে পড়ে সুরের পাখি সুবীর নন্দীকে…

প্রকাশিত: শুক্রবার, মে ৭, ২০২১

জাগো নিউজ থেকে:

‘পাখি রে তুই দূরে থাকলে, কিছুই আমার ভালো লাগে না’… অদ্ভুত মায়াভরা আকুতি নিয়ে এ গান গেয়েছিলেন বাংলা গানের পাখি সুবীর নন্দী। আজ তিনি দূরে৷ দেখার সীমানা পেরিয়ে গেছেন৷ শ্রোতা-ভক্তদের ভালো লাগে কি করে!

দেখতে দেখতে দুই বছর হয়ে গেল সুবীর নন্দী চলে গেছেন। আজ ৭ মে এ কিংবদন্তীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১৯ সালের ৭ মে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

সুবীর নন্দী ১৯৫৩ সালের ১৯ নভেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং থানায় নন্দীপাড়া নামক মহল্লা এক সংগীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

ছোটবেলা থেকেই তিনি ভাই-বোনদের সঙ্গে শাস্ত্রীয় সংগীতে তালিম নিতে শুরু করেন ওস্তাদ বাবর আলী খানের কাছে। তবে সংগীতে তার হাতেখড়ি মায়ের কাছেই।

সুবীর নন্দী গানের জগতে আসেন ১৯৭০ সালে ঢাকা রেডিওতে প্রথম রেকর্ডিং এর মধ্য দিয়ে। তার গাওয়া প্রথম গান ‘যদি কেউ ধূপ জ্বেলে দেয়’। গানটির গীত রচনা করেন মোহাম্মদ মুজাক্কের এবং সুরারোপ করেন ওস্তাদ মীর কাসেম।

৪০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রে গেয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। তবে চলচ্চিত্রে তিনি কিংবদন্তী হয়ে আছেন।

এ গায়ক চলচ্চিত্রে প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত সূর্যগ্রহণ চলচ্চিত্রে। ১৯৮১ সালে তার একক অ্যালবাম ‘সুবীর নন্দীর গান’ ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে বাজারে আসে। তিনি গানের পাশাপাশি দীর্ঘদিন ব্যাংকে চাকরি করেছেন।

চলচ্চিত্রের সংগীতে তার অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করেন। এছাড়া সংগীতে অবদানের জন্য ২০১৯ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।

আরো পড়ুন