শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২

ব্যারিস্টার মীর হেলালের বিরুদ্ধে হাটহাজারী থানায় মামলা দেওয়ায় বিএনপির প্রতিবাদ

প্রকাশিত: মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৭, ২০২১

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে হাটহাজারী থানায় মিথ্যা, বানোয়াট মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা গোলাম আকবর খোন্দকার, বেগম রোজী কবির, এস এম ফজলুল হক, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান, সদস্য সচিব মোস্তাক আহমেদ খান।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ব্যারিস্টার মীর হেলাল সুপ্রিম কোর্টের একজন স্বনামধন্য আইনজীবী। হাটহাজারীতে পুলিশের সাথে হেফাজতের ঘটনার সময় তিনি ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। ঘটনার দীর্ঘদিন পর তাকে আসামী করে হাটহাজারী থানায় দায়ের হওয়া এই মামলাটি মিথ্যা, মনগড়া এবং ষড়যন্ত্রের অংশ। দেশের বর্তমান করোনা মহামারীর এই দূর্যোগ মূহুর্তে ব্যারিস্টার মীর হেলালসহ বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে বানোয়াট মামলা দায়ের রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সরকার বিএনপি নেতাকর্মীদের দমন করার জন্য অস্ত্র হিসেবে নিষ্ঠুর দমনমূলক আইনগুলো ব্যবহার করছে। করোনার কারনে যেখানে বিএনপি’র সকল রাজনৈতিক কার্যক্রম বন্ধ এমন সময় হেফাজতে ইসলাম দমনের নামে বিএনপি নেতৃবৃন্দের নামে দেশের বিভিন্ন থানায় মামলা দায়ের ও দেশব্যাপী গণগ্রেফতার আওয়ামী বাকশালী ডিজিটাল শাসনের নগ্ন উদাহরণ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, জোর করে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় টিকে থাকতে অবৈধ সরকারের জুলুম নির্যাতনের মাত্রা এখন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। জুলুমবাজ সরকার দেশকে বিরোধীদল মুক্ত করে বাকশালী শাসনকে চিরস্থায়ী রূপদানের জন্য করোনা ভাইরাসের এই মহাদুর্যোগের মধ্যেও নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা এবং গ্রেফতারের মাধ্যমে কারান্তরীণ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। নিজেদের ব্যর্থতা আড়াল করার জন্য বিরোধী দলের ওপর ধারাবাহিক নিপীড়ণ-নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। নির্দোষ নেতাকর্মীরা সরকারের নির্মমতার স্বীকার হচ্ছেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশব্যাপী বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে চলমান নির্যাতন নিপীড়নের ধারাবাহিকতায়ই মীর হেলালসহ বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। সরকার পরিকল্পিতভাবে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার গভীর চক্রান্তে লিপ্ত। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসাবে কাল্পনিক ও গায়েবি মামলা দায়েরের ঘটনা নিত্য ঘটছে।
কিন্তু হামলা-মামলার মাধ্যমে বিএনপিকে ধমিয়ে রাখতে পারেনি, পারবেও না। বিএনপি কোন সময় আপোস করেনি। এসব বানোয়াট মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে ঘরে আবদ্ধ করে রাখতে পারবে না।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হাটহাজারী থানায় ব্যারিস্টার মীর হেলালসহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। একইসাথে কারাবন্দি আসলাম চৌধুরী ও ডা. শাহাদাত হোসেনসহ গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীর মুক্তি দাবী জানান।

আরো পড়ুন