বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২

নতুন ‘লকডাউন’ বাড়লো ৫ মে পর্যন্ত, বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গণপরিবহনও

প্রকাশিত: সোমবার, এপ্রিল ২৬, ২০২১

লকডাউনে ফাঁকা নগরীর সিআরবি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শুধু জরুরি সেবা ও গার্মেন্টস খোলা রেখে কঠোর লকডাউন জারি করে সরকার। দ্বিতীয় দফায় তা বাড়িয়ে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়। এরই মধ্যে গতকাল রোববার থেকে দোকানপাট-শপিংমল খুলে দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চালুর কথাও জানানো হয়।

এদিকে, আজ সোমবার চলমান এ বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়ীয়ে ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানানো হয়েছে। চলমান বিধি-নিষেধ বা ‘লকডাউন’ চলাকালে গণপরিবহনও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে দোকানপাট ও শপিংমল সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা রাখা হবে।


করোনা সংক্রমণ রোধে কয়েক দফা বাড়ানোর পর আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত মানুষের সার্বিক চলাচলে বিধি-নিষেধ বা ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়। তবে করোনায় মৃত্যু অব্যাহত এবং ভারতে করোনার ডাবল ভ্যারিয়েন্ট দেখা দেওয়ায় পার্শ্ববর্তী দেশ হিসেবে লকডাউন আরও বাড়ানোর পরামর্শ আসে।


জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এবং জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে কোভিড-১৯ বিস্তার রোধে চলমান বিধি-নিষেধ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ভারতের সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ। এটা আমাদের দেশেও ছড়িয়ে যেতে পারে। সেজন্য জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হলো, সার্বিক করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে যে অবস্থাটা আছে সেটি আরো এক সপ্তাহ কন্টিনিউ করা। না হলে এটা আরও ভয়াবহ অবস্থা ধারণ করতে পারে।


জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, সেজন্য বিধিনিষেধ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ বিষয়ে আগামীকাল (২৭ এপ্রিল) প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে।


তিনি আরও বলেন, এসময় দোকানপাট ও শপিংমল সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চালু থাকবে। মানুষকে অবশ্যই কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমলে যেতে হবে। তবে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

আরো পড়ুন