মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২

ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেফতার

প্রকাশিত: রবিবার, মে ১৬, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

অপহরনপূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করার অপরাধে মো.সামছুল হুদা জিকু (২৬) নামে এক ব্যাংক কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ ।

গ্রেফতার মো.সামছুল হুদা জিকু পটিয়া উপজেলার বড়ালিয়া ইউনিয়নের পূর্ব পেরলা এলাকার আব্দুর রশিদের ছেলে। তিনি ইসলামী ব্যাংকের এসিস্ট্যান্ট অফিসার হিসাবে কর্মরত আছেন।

রোববার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৮ সালে জুলিয়া (ছদ্মনাম) সঙ্গে মো.সামছুল হুদা জিকু খুবই ভাল বন্ধু এবং এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক হয়। গত ২০২০ সালে মো.সামছুল হুদা জিকু একটি বেসরকারি ব্যাংকে চাকুরি হওয়ার পর জুলিয়া মো.সামছুল হুদা জিকুকে বিবাহ করার প্রস্তাব দিলে সে বিয়ে করবে না বলে জানায়। পরে সম্পর্ক ভেঙ্গে যাওয়ার পর জুলিয়া আল আমিন নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে গত মার্চ মাসে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

বিবাহ হওয়ার কিছুদিন আগে সামছুল জুলিয়াকে তার সাথে কথা বলার জন্য চাপ প্রয়োগ করে অন্যথায় তার কাছে থাকা জুলিয়ার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তোলা ছবি স্বামীর কাছে পাঠিয়ে দিবে এবং স্বামীর পরিবারের লোকজনের কাছে পাঠিয়ে দিবে বলে জানায়। জুলিয়া মান সম্মানের কথা চিন্তা করে অনিচ্ছা সত্ত্বেও সামছুলের সাথে কথা বলে।

গত বৃহস্পতিবার ইমো সফটওয়্যারে ম্যাসেজ পাঠিয়ে রোববার নগরের কোতোয়ালী মোড়ে দেখা করতে বলে। জুলিয়ার তাতে অসম্মতি দিলে সামছুল পুনরায় ছবি ভাইরাল করে দিবে বলে হুমকি প্রদান করে।

জুলিয়া মান সম্মানের কথা চিন্তা করে সামছুলের কথা মতে রোববার সকাল পৌনে ১১ টার দিকে কোতোয়ালী মোড়স্থ খাদি ঘর নামক দোকানের সামনে সামছুলের সাথে দেখা করেন। সামছুল জুলিয়াকে সঙ্গে নিউ মেঘনা আবাসিক হোটেলে গিয়ে বসে কথা বলার প্রস্তাব দেয়। জুলিয়া কথায় রাজি না হলে আসামী জুলিয়াকে তার ছবি স্বামী এবং স্বামীর পরিবারের অন্য লোকজনের কাছে পাঠিয়ে দিবে বলে এবং পুনরায় ভয়ভীতি প্রদর্শন করে অপহরণপূর্বক নিউ মেঘনা আবাসিক হোটেলের ২০২ নম্বর রুমে নিয়ে যায়।

সেখানে জোরপূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা জুলিয়া চিৎকার করতে থাকে। একপর্যায়ে হোটেল কর্তৃপক্ষ চিৎকার শুনতে পেয়ে হোটেল রুমে গিয়ে জুলিয়ার কাছ থেকে ঘটনার বিস্তারিত শুনে আসামী সামছুলকে আটক করে। থানা পুলিশের নিকট সংবাদ দিলে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। জুলিয়ার কাছ থেকে ঘটনার বিস্তারিত শুনে আসামী সামছুলকে হেফাজতে নেন।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন জানান, হোটেলে নিয়ে গিয়ে সামছুল নামে এক বেসকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা জোরপূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনা সংঘটনের কথাও স্বীকার করেন। এ ঘটনায় ভিকটিম থানায় নারী শিশু আইনের ৭/৯(৪)(খ) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতার আসামীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের পটিয়া থানায় একটি মামলা রয়েছে।

আরো পড়ুন