বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২

ঢিলেঢালা লকডাউন শুরু, দোকান খোলার দাবিতে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ

প্রকাশিত: সোমবার, এপ্রিল ৫, ২০২১

মহামারি করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সপ্তাহব্যাপী সরকার ঘোষিত লকডাউনের প্রথম দিনে ঢিলেঢালাভাবে পালন হয়েছে বন্দর নগরী চট্টগ্রামে। যানবাহন সংকটের কারণে কর্মজীবি মানুষদের দূর্ভোগ ছিল নগরজুড়ে।এছাড়াও লকডাউনে দোকান খোলার দাবিতে কয়েক হাজার শ্রমিক নিয়ে বিক্ষোভ করেছে তামাকুমন্ডি লেইন বণিক সমিতি। তবে নগরজুড়ে জেলা প্রশাসনের অভিযান চললেও প্রশাসনের সাথে চোর-পুলিশ খেলায় মেতে উঠেছিল ব্যবসায়ীসহ আমজনতা। সোমবার নগরীর বিভিন্ন এলাকায় এ চিত্র দেখা গেছে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণার বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করেছেন ব্যবসায়ীরা। নগরের তামাকুমন্ডি লেইনে হাজারও ব্যবসায়ী রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছেন। পরে তারা মিছিল নিয়ে নিউমার্কেট মোড়ে সমাবেশে যোগ দেন। সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দোকান-পাট খোলা রাখার দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন সমিতির নেতারা। এ সময় তারা ‘অবৈধ লকডাউন মানি না, মানবো না’, ‘এই মুহূর্তে দোকান খুলে দাও, খুলতে হবে’ স্লোগান দেন। লকডাউন তুলে না নিলে আন্দোলনের হুঁশিয়ারিও দেন নেতারা।

সমাবেশে বক্তব্য দেন তামাকুমন্ডি লেইন বণিক সমিতির সভাপতি আবু তালেব, সিনিয়র সহ সভাপতি সরওয়ার কামাল, সাধারণ সম্পাদক আহমদ কবির দুলাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোম্মেল হক প্রমুখ। এর আগে রোববার শপিংমল ও দোকানপাট নির্দিষ্ট সময়ের জন্য খোলা রাখার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি চট্টগ্রাম জেলার নেতারা চসিক মেয়র, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক, সিএমপি কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি দেন।

অপরদিকে লকডাউন ঘোষণা করে পোশাক কারখানা খোলা থাকার কারণে এসব কারখানার শ্রমিকদের কর্মস্থলে যেতে যানবাহনের সংকট দেখা দেয়। এতে করে নগরীর ইপিজেড, চকবাজার, সিএন্ডবিসহ শিল্প এলাকাগুলোতে মানুষের দূর্ভোগ ছড়িয়ে পড়ে পুৃরো নগর জুড়ে।

অপরদিকে লকডাউনে দোকান খোলা নিয়ে প্রধান সড়কের পাশাপাশি বিভিন্ন গলিতে প্রশাসনের সাথে চোর পুলিশ খেলায় মেতে উঠেছে ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ। পুলিশ আসার খবরে দোকান বন্ধ করলেও পুলিশ চলে যাওয়ার পর তা আবারো খুলছে। মাস্ক না পরে সড়কে নামার অভিযোগে ৯ জনকে ১ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় জুবিলি রোডের মেশিনারি মার্কেটে দোকান খোলা রাখায় দুই দোকানিকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। চসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী ও স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ) জাহানারা ফেরদৌস এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী জানান, নগরের কাজীর দেউড়ি, আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ লেইন, জুবিলি রোড, নিউমার্কেট, রেল স্টেশন ও স্টেশন রোড এলাকায় লকডাউনের নিষেধাজ্ঞা না মেনে মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়ায় ৯ জনকে ১ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া মেশিনারি মার্কেটের ২টি দোকান খোলা রাখায় ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযানে মাস্কবিহীন লোকজনকে জরিমানা, সতর্ক করার পাশাপাশি চসিকের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। জনসাধারণকে মাস্ক পরাসহ লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে সচেতন করা হয় অভিযানে।

আরো পড়ুন