বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

ডা. শাহাদাত হোসেনের মুক্তির দাবি নগর বিএনপির

প্রকাশিত: মঙ্গলবার, এপ্রিল ৬, ২০২১

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়ে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীদের আহত করে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন ও মহিলাদলের সভাপতি মনোয়ারা বেগম মনি সহ ১৭ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার ও কোতোয়ালি থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবী জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, মো. মিয়া ভোলা, এড. আব্দুস সাত্তার, সৈয়দ আজম উদ্দীন, এস কে খোদা তোতন, শফিকুর রহমান স্বপন, কাজী বেলাল উদ্দীন, ইসকান্দার মির্জা, আবদুল মান্নান।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) এক যুক্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দীর্ঘ ৩ বছর ধরে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজানো মামলায় গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। বেআইনী শাসকগোষ্ঠী গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রীকে গৃহবন্দি করে রেখেছে কেবল তাদের ব্যর্থতা, অনাচার ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে যাতে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস না পায়। জনগণের দরকার নেই বরং জনগণকে ভয় দেখিয়ে চিরকাল রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে রাখার জন্যই গুম, খুন, হামলা, মামলা, গ্রেফতার ও রক্তপাতের মাধ্যমেই শাসন করা হচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রামে বিএনপির শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ হামলা চালিয়ে ডা.শাহাদাত হোসেন ও মনোয়ারা বেগম মনি সহ নেতাকর্মীদের কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। মাহবুবের রহমান শামীম, আবুল হাশেম বক্কর ও আবু সুফিয়ান সহ সিনিয়র নেতাদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করা হচ্ছে।

মিছিলে পুলিশের হামলা ও নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ধিক্কার জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, পুলিশের এই হামলা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের এক নগ্ন উদাহরণ। স্বাধীন দেশের পুলিশ এখন দলীয় কর্মীতে পরিণত হয়েছে। দেশকে বানানো হয়েছে পুলিশি রাষ্ট্র। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর নির্ভর করেই বর্তমান অবৈধ সরকার গায়ের জোরে জনগণের শোষকে পরিণত হয়েছে। এ ধরনের হামলায় নেতাকর্মীদেরকে মনোবল না হারিয়ে আরো শক্তি নিয়ে বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হতে হবে।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে ডা.শাহাদাত হোসেন ও মনোয়ারা বেগম মনিসহ গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবি জানান। একই সাথে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এস এম সাইফুল আলম, নাজিমুর রহমান, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, শাহ আলমসহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।

আরো পড়ুন