সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

টিউমার ও অ্যাপেন্ডিসাইটিসের কাছে হেরে গেল কলেজ শিক্ষার্থী পাহেল

প্রকাশিত: মঙ্গলবার, জানুয়ারী ৩, ২০২৩

নগর প্রতিবেদক

পটিয়া খলিল মীর ডিগ্রি কলেজের ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থী নাইমুল ইসলাম পাহেল মারা গেছেন। (ইন্না-লিল্লাহ ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন) বিরল ধরনের টিউমার ও এপেন্ডিসাইটিসের ব্যাথায় আক্রান্ত হয়ে গত একমাস ধরে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন সে।

মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) ভোর ছয়টার দিকে আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন মাত্র ২০ বছর বয়সী কলেজ পড়ুয়া এই তরুণ। তার এই অকাল মৃত্যুতে পুরো এলাকাজুড়ে চলছে শোকের মাতম।

নাইমুল ইসলাম পাহেলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার সহপাঠী মো. জোনায়েদ আবির।

এদিকে পাহেলের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছেন তার সহপাঠীরা। ফেসবুকে কেউ পাহেলের হয়ে সকলের কাছে ক্ষমা চাচ্ছেন আবার কেউ স্মৃতিচারণ করছেন।

জানা গেছে, পাহেলের গত ১মাস আগে ৬ই ডিসেম্বর পেটের ব্যথা অনুভব করলে পটিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায় তার পরিবার। সেখানেই টিউমার ও এপেন্ডিসাইটিসের ব্যাথা ধরা পড়লে অপারেশন করানো হয় তাকে।

এরপর আবার ব্যাথা অনুভব করলে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতাল (চমেকে) ভর্তি করানো হয় তাকে। সেখানে কিছুদিন চিকিৎসা নেওয়ার পর অবস্থার অবনতি দেখা দিলে নগরীর ম্যাক্স হাসপাতালের আই সি ইউতে ৫দিন রাখা হয় পাহেলকে। সর্বশেষ সেখান থেকে নগরীর আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (০৩ই জানুয়ারি) ভোর ৬টায় মৃত্যু বরণ করেন এই কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী।

প্রয়াত কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর এই অকাল মৃত্যুতে তার সহপাঠী জুনায়েদ আবির বলেন, আমরা একজন ভালো মনের ও উঁচু মানের এক প্রগতিশীল বন্ধুকে হারালাম। সেই সঙ্গে বন্ধু মহলের এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের এমন অকাল প্রস্থান নিঃসন্দেহে বন্ধুত্বের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। আমরা তার রুহের মাগফেরাত কামনা করছি।

নাইমুল ইসলাম পাহেল (২০) পটিয়া উপজেলার কুসুমপুরা ইউনিয়নের গোরণখাইন এলাকার মো. আবু তৈয়বের ছেলে। সে ২০২০ সালে পটিয়া জিরি খলিল মীর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে। শেষ হওয়া ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় খলিল মীর ডিগ্রি কলেজ থেকে অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু অসুস্থতার কারণে সর্বশেষ দু’টি পরীক্ষায় বসতে পারেনি।

আরো পড়ুন