শনিবার, ২৮ মে ২০২২

চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগের কোন নেতা কোথায় ঈদ করবেন

প্রকাশিত: রবিবার, মে ১, ২০২২

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট::

আগামী ৩ মে মঙ্গলবার উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদ উল ফিতর। পুরো এক মাস সিয়াম সাধনার পর মুসলিম বিশ্বের আনন্দের দিন ঈদ।

আর এ দিন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ কে কোথায় ঈদ জামাত আদায় করবেন সেটা নিয়ে থাকে সবার আগ্রহ। গত দুই বছর করোনা মহামারীর কারণে সেভাবে জমায়েত না হলেও দুই বছর পর করোনা মুক্ত পৃথিবীতে স্বস্তির নিঃশ্বাস নিবে সারাবিশ্ব।

চট্টগ্রামের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ও দায়িত্বশীল নেতারা প্রায় সবাই দুই বছর পর তাদের নিজ এলাকা চট্টগ্রামে ঈদ উদযাপন করবেন।

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন:

বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ঈদের দিন নিজ গ্রাম মীরসরাইয়ের শান্তিরহাট ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। ঈদের দিন এবং পরদিন গ্রামের বাড়িতেই পাড়া-প্রতিবেশী এবং নেতাকর্মীর সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করবেন।

এই দুই দিনে প্রায় ১০ হাজার মানুষের আপ্যায়ন হয়ে থাকে বলে তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী নুর খান জানিয়েছেন। তিনি জানান, গত বছর করোনার কারণে ঈদের আনন্দ উৎসব কিছুটা ম্লান ছিল। 

ড. হাছান মাহমুদ:

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ নিজ গ্রাম রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পদুয়া সুখবিলাস জামে মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। মুরুব্বিদের কবর জেয়ারত শেষে সারাদিন বাড়িতে থেকে এলাকাবাসী এবং নেতাকর্মীর সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী এমরুল করিম রাশেদ জানান, প্রতিবারের ন্যায় এবারো ঈদের মেহমানদের বিরিয়ানি, মিষ্টি এবং নানা পদের সেমাই দিয়ে আপ্যায়ন করা হবে।

সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ:


ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ পবিত্র মক্কা শরীফে ওমরা পালনের জন্য সৌদি আরবে অবস্থান করছেন।

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল:

জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় শেষে চশমা হিলে তাঁর পিতা মরহুম আলহাজ এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং মুরুব্বিদের কবর জেয়ারত করবেন। এরপর সারাদিন চশমা হিলস্থ বাসভবনে সময় কাটাবেন। চট্টগ্রাম-৯ সংসদীয় আসনের জনগণ, দলীয় নেতাকর্মীর সাথে দিনব্যাপী ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

আ.জ.ম নাছির উদ্দীন:

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.জ.ম নাছির উদ্দীন নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ঈদের জামাত আদায় করবেন।

এরপর তিনি কদম মোবারক মসজিদস্থ পিতা মাতাসহ আত্মীয় স্বজনের কবর জেয়ারত করে বাসায় যাবেন। এরপর বাসায় আগত নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য আপ্যায়নের ব্যবস্থা থাকবে।

মো. রেজাউল করিম চৌধুরী:

নগরীর বহদ্দারহাট নিজেদের পারিবারিক মসজিদ শাহী জামে মসজিদে নামাজ আদায় করবেন। নামাজের পর পিতা-মাতা এবং মুরুব্বিদের মাগফেরাত কামনা করে কবর জেয়ারত করবেন। এরপর বাসায় সারাদিন থাকবেন।

মেহমানদের আপ্যায়নের বিষয়ে জানতে চাইলে সিটি মেয়র বলেন, ঈদের মেহমানদের আপ্যায়নে প্রতিবছর প্রায় একই রকম খাবারের আয়োজন থাকে। তার মধ্যে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী বাংলা সেমাই, মুরগি পোলাও এবং মিষ্টি জর্দা। ঈদের পরদিনও তিনি সারাদিন বাসায় থেকে নেতাকর্মী, আত্মীয় স্বজনদের সাথে সময় কাটাবেন।

মোছলেম উদ্দীন আহমেদ:

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বোয়ালখালী আসনের সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দীন আহমেদ নগরীর লালখান বাজার এলাকার বাসায় থাকবেন এবং জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ নামাজ আদায় করবেন।

এম.এ সালাম:

চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম. এ সালাম ঈদ উল ফিতরের নামাজ আদায় করবেন হাটহাজারী উপজেলার শিকারপুরস্থ গ্রামের বাড়িতে। সেখানে তিনি ঈদের জামাত আদায় করে এলাকাবাসীর সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।‌ঈদের দিন বাসায় আগত নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য আপ্যায়নের ব্যবস্থা করবেন।

আরো পড়ুন