মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২

কারাগারে হেফাজত নেতার মৃত্যু

প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, মে ২০, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নিয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রিসোর্টে সহিংসতার মামলায় গ্রেফতার প্রধান আসামি ও হেফাজত নেতা মাওলানা ইকবাল হোসেন কারাবন্দী অবস্থায় অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তিনি ওই হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন বলে জানিয়েছেন কেরানীগঞ্জ কারাগারের জেল সুপার সুভাষ উমার ঘোষ।

রাজধানীর মিডফোর্ট হাসপাতাল থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার মাহবুবুল আলম জানান, মাওলানা ইকবাল ১১ মে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে প্রথমে সদর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে চিকিৎসকদের নির্দেশনা মোতাবেক তাকে কেন্দ্রীয় কারাগারের অধীনে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল।

মাওলানা ইকবাল হোসেন সোনারগাঁও উপজেলা হেফাজতে ইসলামের সহ-সভাপতি ও সোনারগাঁও উপজেলা খেলাফত মজলিসের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। তার বাবার নাম আবু সাঈদ। তার স্ত্রী, চার মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।

বড় মেয়ে মাহবুবা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টার দিকে বাবা মারা গেছেন। তাকে বিনা অপরাধে ধরে এনে মেরে ফেলা হলো। আমাদেরকে সকালে জানানো হয়েছে, তিনি খুব অসুস্থ। এখানে এসে আমরা দেখি তিনি ইতোমধ্যে আইসিইউ সাপোর্টে রয়েছেন। তাকে ৩টার দিকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

এর আগে ১১ এপ্রিল রাজধানীর জুরাইন এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১-এর একটি দল।

সোনারগাঁওয়ে রয়েল রিসোর্টে মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করার ঘটনায় ভাঙচুর ও মহাসড়কে নাশকতা সৃষ্টির মামলায় প্রধান আসামি করা হয় মাওলানা ইকবাল হোসেনকে। ওই মামলায় র‌্যাব তাকে গ্রেফতারের পর সোনারগাঁও থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। ১২ এপ্রিল পুলিশ দু’মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে সাত দিন করে রিমান্ড চেয়ে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহম্মেদ হুমায়ুন কবিরের আদালতে পাঠালে আদালত তার এক মামলায় দু’দিন ও আরেক মামলায় এক দিনসহ মোট তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে তিনি কারাগারে ছিলেন।

আরো পড়ুন