শনিবার, ২৮ মে ২০২২

কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত: শুক্রবার, মে ৬, ২০২২

নগর প্রতিবেদক::

কাপ্তাই হ্রদে কার্প জাতীয় মাছের বংশ বিস্তার ও প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিতকরণে প্রতিবছরের মতো এবারও তিন মাস সব ধরনের মাছ ধরা, বাজারজাতকরণ ও পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০২১-২২ অর্থবছরে কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য আহরণ বন্ধকালীন মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় হ্রদ তীরবর্তী রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলার ১০ উপজেলার ২৪ হাজার ৯৫৩টি জেলে পরিবারকে মে-জুন মাসের জন্য মাসিক ২০ কেজি হারে ২ মাসে ৪০ কেজি করে সর্বমোট ৯৯৮ দশমিক ১২ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের অনুকূলে মঞ্জুর করা হয়েছে। ভিজিএফ সহায়তার আওতায় রাঙামাটির ৮ উপজেলার ২২১৭৭ জেলে পরিবার ৮৮৭ দশমিক ০৮ টন ও খাগড়াছড়ির দুই উপজেলার ২৭৭৬ জেলে পরিবার ১১১ দশমিক ০৪ টন চাল পাবেন।

এদিকে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দপত্রে বেশ কয়েকটি শর্তাবলীর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। শর্তাবলীর মধ্যে বলা হয়েছে, জেলা প্রশাসকরা মঞ্জুরিকৃত ভিজিএফ চাল কাপ্তাই হ্রদের মৎস্য আহরণে বিরত থাকা নিবন্ধিত মৎস্যজীবীদের মধ্যে মানবিক সহায়তা কর্মসূচি বাস্তবায়নে আগামী ১০ জুনের মধ্যে উত্তোলন ও বিতরণ সম্পন্ন করবেন এবং নিরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় হিসাব সংরক্ষণ করবেন।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছরের ১ মে থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত তিন মাস দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বৃহৎ কৃত্রিম জলাধার কাপ্তাই হ্রদে মাছ আহরণে নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রশাসন। এ সময় হ্রদে কার্পজাতীয় মাছের বংশবিস্তার ও প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিতকরণে তিন মাস সব ধরনের মাছ শিকার, বাজারজাতকরণ এবং পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। এছাড়া স্থানীয় পর্যায়ের বরফকলগুলো বন্ধের পাশাপাশি নিয়মিত হ্রদ টহলে থাকে বিএফডিসির মনিটরিং টীম।

আরো পড়ুন