শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২

আনোয়ারার ৬৫ ভূমি-গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে জমিসহ ঘর

প্রকাশিত: সোমবার, এপ্রিল ১৯, ২০২১

জাহেদুল হক, আনোয়ারা:

আনোয়ারা উপজেলায় সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ৬৫ ভূমি ও গৃহহীন পরিবার বিনামূল্যে ঘর পেতে যাচ্ছেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ হিসেবে গৃহহীনদের এসব ঘর দেওয়া হবে। আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে উপজেলার ৬৫ পরিবারকে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকা ঘর হস্তান্তর করা হবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, ইউপি চেয়ারম্যানদের পাঠানো ছিন্নমূল ও গৃহহীনদের তালিকা থেকে জমি-বাড়ি নেই এমন ৬০০ পরিবারের তালিকা যাচাই-বাছাই করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে উপজেলার বরুমচড়া গ্রামে ৬৫টি ঘর নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত সেমিপাকা প্রতিটি ঘরের জন্য ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। ইটের দেয়াল,কংক্রিটের মেঝে এবং রঙিন টিনের ছাউনি দিয়ে তৈরি দুই কক্ষের আবাসন। আরও থাকছে একটি রান্নাঘর,টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই আগামী মে মাসের মধ্যে স্থানীয় সাংসদ ও ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী দুই শতক জমির কবুলিয়তসহ এসব ঘর গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

সরেজমিনে বরুমচড়া এলাকায় গিয়ে দেখা যায়,ভরাশঙ্খ খালের পাশে নির্মিত হয়েছে সারিসারি ঘরগুলো। সেখানে রঙ আর পরিস্কারের কাজ করছে শ্রমিকরা। একই সাথে বিদ্যুৎ সংযোগের কাজও চলছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) জামিরুল ইসলাম জানান,আনোয়ারা উপজেলার ১১ ইউনিয়নে সরকারি খাস জমি চিহ্নিতকরণের কাজ চলছে। বরুমচড়া ইউনিয়নে ৬৫ ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত এসব ঘর আগামী মে মাসে উপকারভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে।

আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, সরকারি এ প্রকল্পের কাজ সুন্দরভাবে সম্পন্ন হওয়ার পথে। মূলত অসহায়, ভূমিহীন ও গৃহহীনরা এ সকল ঘর পাবেন। তবে ঘর বরাদ্দে অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। নির্মাণাধীন ঘরগুলোর সার্বিক তদারকি করছেন সহকারি কমিশনার (ভূমি), উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা। প্রতিদিনই খোঁজখবর রাখতে সরেজমিনে নিজেও যান বলে জানান ইউএনও।

আরো পড়ুন